ধর্মভিত্তিক রাজনীতি নিষিদ্ধ প্রসঙ্গে: যতীন সরকার

 ধর্মভিত্তিক রাজনীতি কি নিষিদ্ধ করে দেওয়া উচিত? অন্তত বাংলাদেশে?

এ প্রশ্নের উত্তরে আমি পুরোপুরি নির্দ্বিধায় ও নিঃসংকোচে বলব- ‘হ্যাঁ’। আবার পরক্ষণেই বলব- ‘না’। এই ‘না’টিও ‘হ্যাঁ-এর মতোই একই রকম দ্বিধাহীন চিত্তে নিঃসংকোচেই বলব। কেন এ রকম দুই বিপরীত কথা এক নিঃশ্বাসে বলি ও বলে ফেলতে পারি, তার ব্যাখ্যা প্রদানেও আমার কোনো দ্বিধা বা সংকোচ নেই।

ধর্মভিত্তিক রাষ্ট্ররূপে পাকিস্তান নামক যে অপরাষ্ট্রটির অধীন হয়েছিলাম আমরা, তার হাত থেকে মুক্তি লাভের জন্যই আমাদের অপরিমেয় প্রাণমান ও ধন উৎসর্গ করতে হয়েছিল। এ রকম সংগ্রাম করতে গিয়েই ধর্মভিত্তিক রাষ্ট্র সম্পর্কে আমরা পরিপূর্ণ মোহমুক্ত হয়ে উঠেছিলাম। তাই আমাদের সংগ্রামটি পাকিস্তান থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে অন্য একটি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার সংগ্রাম মাত্র ছিল না, সেটি ছিল জাতি হিসেবে আমাদের আত্মপ্রতিষ্ঠার সংগ্রাম। সেটি যেমন ‘স্বাধীনতার সংগ্রাম’ ছিল, তেমনই ছিল ‘মুক্তির সংগ্রাম’। Continue reading ধর্মভিত্তিক রাজনীতি নিষিদ্ধ প্রসঙ্গে: যতীন সরকার

গোলাম সামদানী চরিতামৃত: যতীন সরকার

 গোলাম সামদানী কোরায়শী আমার বন্ধু ছিলেন। পরিচয়ের প্রথম দিন থেকেই তার সঙ্গে আমার বন্ধুত্বের সূচনা হয়েছিল। সে সূচনাই দিনে দিনে ক্রমপ্রসারমান হয়ে উঠেছিল। ডালপালা বিস্তার করে মহীরুহের রূপধারণ করেছিল। সে ছত্রছায়ায় অবস্থান করে আমি ধণ্য হয়েছিলাম।

তার সঙ্গে আমার বন্ধুত্ব গভীর ছিল বটে কিন্তু একমাত্রিক ছিল না। আমাদের দু’জনের মতের ঐক্য যেমন ছিল, তেমনি ছিল মতভিন্নতাও। কখনও কখনও তীব্র মতদ্বন্দ্বেও পরিণত হত। তবে সে দ্বন্দ্ব আমাদের সম্পর্কেও মধুরতাকে সামান্য পরিমাণেও আবিল করতে পারত না। আমাদের মতান্তর কখনও মনান্তরের জন্ম দেয়নি। Continue reading গোলাম সামদানী চরিতামৃত: যতীন সরকার

স্মরণ-বিজ্ঞানমনস্ক মোজাফ্ফর হোসেন : যতীন সরকার

দর্শনের অধ্যাপক ছিলেন মোজাফ্ফর হোসেন। তাঁর সঙ্গে আমার প্রথম পরিচয় ১৯৭৭ সালের সেপ্টেম্বর মাসের প্রথম দিনে। এদিনের আগ পর্যন্ত ১৮ মাস আমি ময়মনসিংহ কারাগারে বিনা বিচারে আটক ছিলাম। হাইকোর্টের নির্দেশে যেদিন আমি মুক্তি পেয়ে বাসায় ফিরে এলাম, সেদিনই মোজাফ্ফর সাহেব আমার সঙ্গে দেখা করতে এলেন।এর মাত্র কয়েক দিন আগেই তিনি দিনাজপুর থেকে বদলি হয়ে ময়মনসিংহ আনন্দমোহন কলেজে যোগদান করেছিলেন। Continue reading স্মরণ-বিজ্ঞানমনস্ক মোজাফ্ফর হোসেন : যতীন সরকার