গণসংস্কৃতিই পারে জনগণকে একত্রিত করতে : কামাল লোহানী

সংস্কৃতি যেমন মানুষের আবেগের বহিঃপ্রকাশ তেমনি কিন্তু সংগ্রামেরও ইতিহাস। আবেগ না থাকলে যেমন মানুষ হয় না তেমনি মানুষের লড়াই-ই একদিন চূড়ান্ত পরিনতিতে আবেগের পূর্ণতা এনে দেয়। এ আবেগ আদর্শের। যার উপর মানুষ আস্থা স্থাপন করতে পারেন। সংস্কৃতি মানুষের যুদ্ধের হাতিয়ার। সে যুদ্ধ সমাজকে কলুষমুক্ত করে। পরিশীলিত স্বপ্নকে সুন্দর আর কল্যাণের অভিযাত্রাকে সফল করে এবং চূড়ান্ত পর্যায়ে দেশকে সুখী সমৃদ্ধিশালী করে গড়ে তোলে। আমরা তো সেই চমৎতার ভাবষ্যতকে স্বপ্ন দেখে নিজেদের সংগঠিত করি এবং সাহসী হই শেণীবৈষম্যের রাষ্ট্রব্যবস্থাকে ভেঙে সমাজতান্ত্রিক কাঠামোকে আলিঙ্গন করতে কাণে আমরা পূর্বপুরুষ থেকে শিক্ষা পেয়েছে লড়েই অধিকার আাদায় করে নিতে হয়। দেশতো পরাধীনতার শৃংখল ভেঙে বৃটিশ সাম্রাজ্যবাদকে বিতাড়িত করেছিল সাবধীনতার প্রথম যুদ্ধজয়ে কিন্তু সাম্রাাজ্যবাদঅ কুচক্রান্তেও ফাঁকে ফেলে সাম্প্রদায়িকতার বিষ ছড়িয়ে দিয়ে গেল এবয় ভারত ভূমিকে বিভক্ত কওে হিন্দুস্থান-পাকিস্তার বানিয়ে রেখে চলে গেল। পূর্বপুরুষের গৌরবোজ্জল ঐতিহ্য অসাম্প্রদায়িক চেতনা ও পারস্পারিক সম্প্রীতির মূল্যবোথকে চিনসংঘর্ষেও কুৎসিত এবং ভয়াবহ পরিনতির দিকে ঠেলে দিয়ে গেল। বাংণার মানুষের হাজার বছরের এতিহ্য-ইতিগাসকে কলুষিত করার সমাজে ও সংস্কৃতিকে বিনষ্ট করার এ অপকৌশল অন্ততঃ আমাদেও পূর্ববঙ্গে বাঁধার সম্মুখীন হলো সাধারন মানুষের সচেতনতায়। Continue reading “গণসংস্কৃতিই পারে জনগণকে একত্রিত করতে : কামাল লোহানী”