সবুজ বাঁচানোর আহবান নিয়ে উদীচী’র বর্ষা উৎসব পালিত

সবুজ বাঁচানোর আহবান নিয়ে উদীচী’র বর্ষা উৎসব পালিত। বৃষ্টির আগমণে উৎসবের সমাপ্তি
সবুজ বাঁচানোর আহবান জানিয়ে বর্ষা উৎসব পালন করলো বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী। তৃষিত হৃদয়ে, পুষ্পে-বৃক্ষে, পত্রপল্লবে নতুন প্রাণের নতুন গানের সুর নিয়ে বর্ষা সমাগত। ষড়ঋতুর অন্যতম সৌন্দর্য্যমণ্ডিত ও প্রাণপ্রাচুর্য্যে ভরপুর বর্ষা ঋতুকে স্বাগত জানাতে প্রতিবছরের মতো এবারও উদীচী আয়োজন করে বর্ষা উৎসব। ১লা আষাঢ়’১৪২২ (১৫ জুন’২০১৫) সোমবার সকাল সাড়ে সাতটায় বাংলা একাডেমির নজরুল মঞ্চে বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী ঢাকা মহানগর সংসদের আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয় বর্ষা উৎসব।

বর্ষা উৎসবের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানমালার শুরুতেই ছিল শিল্পী প্রিয়াঙ্কা গোপ-এর কণ্ঠে শাস্ত্রীয় সঙ্গীত পরিবেশনা। সকালের স্নিগ্ধ পরিবেশের সাথে মিশে যাওয়া মিয়া কি মল্লার রাগে প্রিয়াঙ্কার অসাধারণ পরিবেশনা মন্ত্রমুগ্ধ হয়ে উপভোগ করেন উপস্থিত শ্রোতারা। প্রিয়াঙ্কা গোপের পর দলীয় সঙ্গীত পরিবেশন করে পঞ্চভাস্কর। তারা পরিবেশন করেন “রিমঝিম ঘন ঘন রে বরষে” এবং “অম্বরে মেঘ মৃদঙ্গ বাজে” গান দু’টি। এরপর ছিল সালমা আকবর ও মাহমুদ সেলিমের পরিবেশনায় একক সঙ্গীত। ভাস্বর বন্দোপাধ্যায়ের ভরাট কণ্ঠের আবৃত্তি শোনার পর বর্ষার আবাহনে যোগ দিয়ে বিশেষ গীতি আলেখ্য পরিবেশন করেন উদীচী ঢাকা মহানগর সংসদের শিল্পীরা। এ গীতি আলেখ্যের মূল ভাবনা ছিল “সবুজ বাঁচাই, সবুজে বাঁচি”।

টানা দশম বছরের মতো আয়োজিত উদীচীর বর্ষা উৎসবে দলীয় সঙ্গীত পরিবেশন করে বহ্নিশিখা এবং উস্তাদ মমতাজ আলী খান সঙ্গীত একাডেমীর শিল্পীরা। একক সঙ্গীত পরিবেশনায় আরো ছিলেন দেশের প্রথিতযশা শিল্পী সাজেদ আকবর, ছায়া কর্মকার, বিমান চন্দ্র বিশ্বাস, মহাদেব ঘোষ, সোহানা আহমেদ প্রমূখ। আবৃত্তি পরিবেশনায় আরো ছিলেন বেলায়েত হোসেন এবং ঝর্ণা সরকার। এছাড়া, দলীয় নৃত্য পরিবেশন করে নৃত্যনন্দন, নটরাজ, স্পন্দন-এর মতো নৃত্যদল। তাদের পরিবেশনার মধ্যে যেসব গান স্থান পায় তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য ছিল “আষাঢ় মাইস্যা ভাসা পানি রে”, “আবার এসেছে আষাঢ়”, “কুন গাঙ্গে আইলো পানি”, “আল্লাহ মেঘ দে পানি দে”, “গাইছি মেঘমল্লারে মেঘলা দিনের গান” প্রভৃতি। বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় সংসদ এবং কাফরুল শাখার শিল্পীরাও বর্ষা উৎসবে দলীয় পরিবেশনা উপস্থাপন করেন।

সাংস্কৃতিক পর্ব চলার এক পর্যায়ে আয়োজন করা হয় বর্ষা কথন। এতে অংশ নেন উদীচীর কেন্দ্রীয় সভাপতি কামাল লোহানী, বিশিষ্ট পরিবেশবিদ দ্বীজেন শর্মা, কৃষিবিদ ও উদীচীর সাবেক সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম সিদ্দিক রানা এবং উদীচী ঢাকা মহানগর সংসদের সভাপতি কাজী মোহাম্মদ শীশ। এ পর্বটি সঞ্চালনা করেন উদীচীর কেন্দ্রীয় সহ-সাধারণ সম্পাদক জামসেদ আনেয়ার তপন। আর উদীচীর পক্ষ থেকে বর্ষার ঘোষণা পাঠ করেন উদীচী ঢাকা মহানগর সংসদের সাধারণ সম্পাদক ইকবালুল হক খান ইকবাল। তবে বর্ষা কথন শুরুর পরপরই আকাশ কালো করে প্রবল বেগে বৃষ্টি নামে অনুষ্ঠানস্থলে। এ বৃষ্টি যেন বর্ষা উৎসবের মূল লক্ষ্যকেই সার্থক করে তোলে। বৃষ্টিতে ভিজেই বর্ষা কথন অংশটি শেষ করার পরপরই পুরো অনুষ্ঠানের সমাপ্তি টানা হয়।
সবুজ বাঁচানোর আহবান নিয়ে উদীচী’র বর্ষা উৎসব পালিত
বৃষ্টির আগমণে উৎসবের সমাপ্তি

Leave a Reply