Categories
সংবাদ

নারী লাঞ্ছনার প্রতিবাদকারীদের উপর পুলিশি হামলায় উদীচীর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ

বাংলা বর্ষবরণের দিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকায় নারী লাঞ্ছনার ন্যক্কারজনক ঘটনার প্রতিবাদ এবং দোষীদের গ্রেফতারের দাবিতে ছাত্র ইউনিয়নসহ প্রগতিশীল সংগঠনগুলোর ডাকা ডিএমপি কমিশনারের কার্যালয় ঘেরাও কর্মসূচিতে পুলিশের হামলার ঘটনা তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী। আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে বিক্ষোভ সমাবেশ শেষে শান্তিপূর্ণ মিছিল নিয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনারের কার্যালয়ের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়। পথে দোয়েল চত্বর এবং হাইকোর্টের সামনেসহ কয়েকটি জায়গায় বাধা দিলেও বিক্ষোভকারীরা তা উপেক্ষা করে শান্তিপূর্ণভাবে এগিয়ে যায়। কিন্তু মিছিলটি মিন্টো রোডে পৌঁছার পর পুলিশ আবারো বাধা দিলে আন্দোলনকারীরা রাস্তায় বসে পড়ে শ্লোগান দিতে থাকেন। এক পর্যায়ে বিনা উস্কানিতে পুলিশ আচমকা তাদের উপর চড়াও হয়ে লাঠিচার্জ করতে শুরু করে। ছত্রভঙ্গ বিক্ষোভকারীদের উপর জলকামান ও টিয়ার শেলও নিক্ষেপ করে পুলিশ। এতে অন্তত ২৫ থেকে ৩০ জন শিক্ষার্থী আহত হয় যাদের মধ্যে বেশ কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

উদীচী পুলিশের এই বর্বরোচিত ও ন্যক্কারজনক আচরণের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছে। বর্ষবরণের দিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি’র মতো গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় কয়েক স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা রাখার পরও ঘন্টাখানেকেরও বেশি সময় ধরে নারী লাঞ্ছনার ঘটনা রুখতে ব্যর্থ হয়েছে। ওই ঘটনায় জড়িতদের বেশ কয়েকজনের নাম-পরিচয় ও চেহারা পুলিশেরই সরবরাহ করা সিসিটিভি ফুটেজ থেকে পরিস্কার হলেও তাদের গ্রেফতার করতেও চরমভাবে ব্যর্থ হয়েছে পুলিশ। এতো ব্যর্থতার পরও নারী লাঞ্ছনার প্রতিবাদে শান্তিপূর্ণভাবে আন্দোলনকারীদের উপর হামলার মাধ্যমে পুলিশ প্রকৃতপক্ষে ব্যর্থতার দায় স্বীকার না করে দোষীদের আড়াল করার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। উদীচী এ ধরনের হামলার তীব্র নিন্দা জানানোর পাশাপাশি অবিলম্বে নারী লাঞ্ছনার ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিতের জন্য সরকারের প্রতি দাবি জানাচ্ছে। একইসাথে দোষীদের শাস্তি নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলনরত শিক্ষার্থী ও সাধারণ মানুষের সাথে একাত্ম থাকার ঘোষণা দিচ্ছে উদীচী।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.