উদীচীর আয়োজনে অনুশ্রী-বিপুলের দ্বৈত সঙ্গীত সন্ধ্যা

“তোমার স্বদেশ লুট হয়ে যায় প্রতিদিন প্রতিরাতে, বিরুদ্ধতার চাবুক ওঠাও হাতে”- এই অসামান্য চরণ দু’টির রচয়িতা বিপুল চক্রবর্তী এবং তাঁর সঙ্গীত ও জীবনসঙ্গী অনুশ্রী চক্রবর্তীর বৈচিত্র্যময় পরিবেশনায় মুগ্ধ হলেন দর্শক-শ্রোতারা। বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী আয়োজিত সপ্তম সত্যেন সেন গণসঙ্গীত উৎসব ও জাতীয় গণসঙ্গীত প্রতিযোগিতার আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে বাংলাদেশে এসেছেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের এই দুই গুণী শিল্পী। গত ০১ ও ০২ এপ্রিল কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে উদীচীর গণসঙ্গীত উৎসবে যোগ দেন তারা। গত ০৩ এপ্রিল রোববার সন্ধ্যায় কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরীর শওকত ওসমান স্মৃতি মিলনায়তনে ছিল তাঁদের দ্বৈত সঙ্গীত সন্ধ্যা।

এদিন সন্ধ্যা সাতটায় শুরু হয় ‘সঙ্গীত সন্ধ্যা’র আনুষ্ঠানিকতা। শুরুতে আমন্ত্রিত অতিথি এবং মিলনায়তনে উপস্থিত সবাইকে স্বাগত জানিয়ে বক্তব্য রাখেন উদীচী কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি কামাল লোহানী। এরপর ফুল, উত্তরীয়, শুভেচ্ছা স্মারক এবং উদীচীর বিভিন্ন প্রকাশনা তুলে দিয়ে দুই গুণী শিল্পী বিপুল চক্রবর্তী ও অনুশ্রী চক্রবর্তীকে বরণ করেন উদীচীর কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ। দুই শিল্পীকে উত্তরীয় পরিয়ে দেন উদীচীর কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি কামাল লোহানী ও উদীচী ঢাকা মহানগর সংসদের সভাপতি কাজী মোহাম্মদ শীশ। এরপর তাঁদের হাতে শুভেচ্ছা স্মারক তুলে দেন উদীচী কেন্দ্রীয় সংসদের দুই সহ-সাধারণ সম্পাদক জামসেদ আনোয়ার তপন ও অমিত রঞ্জন দে। এছাড়া, ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান উদীচী’র কেন্দ্রীয় নেতা সুরাইয়া পারভীন ও শিল্পী আক্তার। উদীচীর নানা প্রকাশনা তুলে দেন উদীচীর কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক প্রবীর সরদার। উদীচী’র প্রতিষ্ঠাতা ‘সত্যেন সেন রচনাসমগ্র’ শিল্পীদের হাতে তুলে দেন উদীচী কেন্দ্রীয় সংসদের সহ-সাধারণ সম্পাদক সঙ্গীতা ইমাম। আর, চারণ কবি মুকুন্দ দাস-এর জীবনের উপর গবেষণাধর্মী প্রকাশনা গ্রন্থ তুলে দেন উদীচী কেন্দ্রীয় সংসদের সহ-সভাপতি অধ্যাপক বদিউর রহমান। বরণপর্ব শেষে দুই শিল্পীর সংক্ষিপ্ত জীবনপঞ্জি তুলে ধরেন উদীচী’র সহ-সভাপতি বেলায়েত হোসেন। এরপরই শুরু হয় অনুশ্রী-বিপুল জুটির সঙ্গীত পরিবেশন পর্ব। তাঁরাশুরু করেন ‘আমরা দেবো বোবাকে ধ্বনি, খোঁড়াকে দ্রুত ছন্দ’ গানটি দিয়ে। এছাড়াও, পরিবেশন করেন- ‘বিরুদ্ধতার চাবুক ওঠাও হাতে/ তোমার স্বদেশ লুট হয়ে যায় প্রতিদিন প্রতিরাতে’ কিংবা ‘আন্ধারে কে গো, আন্ধারে কে/ বসি একা ফেল চোখের জল’, প্রভৃতি গান। পুরো অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন উদীচী কেন্দ্রীয় সংসদের সহ-সভাপতি শংকর সাওজাল।

এর আগে, সঙ্গীতের সুরে মানুষ, স্বদেশ ও বিশ্ব জাগানোর প্রত্যয় নিয়ে গত ০২ এপ্রিল শনিবার শেষ হয় বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী আয়োজিত দু’দিনব্যাপী “সত্যেন সেন গণসঙ্গীত উৎসব ও জাতীয় গণসঙ্গীত প্রতিযোগিতা-২০১৬”। গণসঙ্গীতের প্রচার, প্রসার ও চর্চা বৃদ্ধি এবং একে সঙ্গীতের একটি স্বতন্ত্র ধারা হিসেবে প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ২০০৯ সাল থেকে ধারাবাহিকভাবে গণসঙ্গীত উৎসব আয়োজন করে আসছে উদীচী। বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীর প্রতিষ্ঠাতা সত্যেন সেন-এর জন্মদিনকে কেন্দ্র করে তাঁর নামাঙ্কিত এ উৎসবের এবার ছিল সপ্তম আয়োজন। সঙ্গীতের সুরে সুরে মানুষ, স্বদেশ ও বিশ্বকে জাগানোর লক্ষ্যে এবারের উৎসবের শ্লোগান নির্ধারণ করা হয়- “মানুষ জাগাও, স্বদেশ জাগাও, বিশ্ব জাগাও সঙ্গীতে”।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.