Categories
সংবাদ

অবিলম্বে গুম-খুন-অপহরণ বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার দাবি প্রগতিশীল গণসংগঠনসমূহের

Programme against Abduction-Killingগত কিছুদিন ধরে সারাদেশে চলমান গুম-খুন-অপহরণের ঘটনা বন্ধে অবিলম্বে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানিয়েছে প্রগতিশীল ছাত্র-যুব-পেশাজীবী গণসংগঠন। গত ০৭ মে’২০১৪ বুধবার রাজধানীর শাহবাগ মোড়ে আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশে এ দাবি জানান সংগঠনগুলোর নেতারা। বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীসহ ১৯টি গণসংগঠনের আয়োজিত সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন উদীচী’র সভাপতি কামাল লোহানী। এতে বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, নারায়ণগঞ্জের বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক সংগঠক ও তানভীর মোহাম্মদ ত্বকীর বাবা রাফিউর রাব্বি, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি ও কৃষক নেতা মানবেন্দ্র দেব, বাংলাদেশ যুব ইউনিয়নের সভাপতি আব্দুল্লাহ আল কাফী রতন, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক লাকী আক্তার, শ্রমিক নেতা আসলাম খান, হযরত আলী প্রমূখ। এছাড়াও, বক্তব্য রাখেন গত ০৪ ডিসেম্বর রাজধানীর নাখালপাড়া থেকে নিখোঁজ আট যুবকের একজনের বোন লাবনী। সমাবেশে বক্তারা বলেন, গত বেশ কিছুদিন ধরে নারায়ণগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে গুম, খুন, অপহরণের মতো ভয়াবহ অপরাধের মাত্রা আশঙ্কাজনকভাবে বেড়ে গেছে। রাজনীতিবিদ, আইনজীবী, ব্যবসায়ী, শিক্ষক, ছাত্র, চাকুরীজীবীসহ সমাজের নানা স্তরের, নানা শ্রেণী-পেশার মানুষ এসব অপরাধের শিকার হচ্ছেন। সবশেষ নারায়ণগঞ্জে একজন প্যানেল মেয়র ও আইনজীবীসহ সাতজনকে অপহরণ করে খুনের ঘটনা সারাদেশের মানুষের মধ্যে এক ধরণের ভীতিকর ও আতঙ্কজনক পরিস্থিতি তৈরি করেছে। এসব অপরাধের সাথে জড়িতরা শাস্তি না পেলে অদূর ভবিষ্যতে দেশের সার্বিক পরিস্থিতি এবং সামাজিক স্থিতিশীলতা ও শান্তি মারাত্মকভাবে বিঘিœত হবে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন তারা। তাই, এই অব্যাহত গুম-খুন-অপহরণ বন্ধ করা এবং এসব ঘটনার সাথে জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিতের মাধ্যমে জনমনে স্বস্তি ফিরিয়ে আনার দাবি জানান বক্তারা। সমাবেশ পরিচালনা করেন বাংলাদেশ যুব ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক খান আসাদুজ্জামান মাসুম।

প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজকদের মধ্যে ছিল বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট, বাংলাদেশ যুব ইউনিয়ন, কেন্দ্রীয় খেলাঘর আসর, বাংলাদেশ কৃষক সমিতি, বাংলাদেশ ক্ষেতমজুর সমিতি, গার্মেন্টস শ্রমিক টিইউসি, প্রগতি লেখক সংঘ, পরিবেশ বীক্ষণ, রণেশ দাশগুপ্ত চলচ্চিত্র সংসদ, রাজু বিতর্ক অঙ্গন, ডক্টরস ফর হেলথ এ্যান্ড এনভায়রনমেন্ট, ইঞ্জিনিয়ার এ্যান্ড আর্কিটেক্ট ফর এনভায়রণমেন্ট এ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট, বিপ্লবীদের কথা, প্রাইভেট কার ড্রাইভার ইউনিয়ন, বস্তীবাসী ইউনিয়ন, গণতান্ত্রিক আইনজীবী সমিতি, রিক্সা ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নসহ বিভিন্ন সংগঠন।