Categories
সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

শিবিরের ককটেল হামলায় চ.বি. উদীচী’র নেতা আহত তীব্র নিন্দা ও দোষীদের দ্রুত গ্রেফতার দাবি

বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে প্রত্যক্ষভাবে বিরোধীতাকারী দল জামায়াতের ইসলামীর ছাত্র সংগঠন ইসলামী ছাত্রশিবিরের ককটেল ও বোমা হামলায় বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সংসদের সঙ্গীত বিষয়ক সম্পাদক প্রীতম ভট্টাচার্য্যসহ ১০ জন আহত হওয়ার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছে উদীচী। এক প্রতিবাদপত্রে উদীচী’র কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি কামাল লোহানী ও সাধারণ সম্পাদক প্রবীর সরদার বলেন, প্রগতিশীল সংস্কৃতি কর্মীদের উপর এ ধরণের হামলা কোনভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। তারা বলেন, মুক্তিযুদ্ধকালীন ইসলামী ছাত্রসংঘ নামে যে সংগঠনটি বুদ্ধিজীবী হত্যাকাণ্ডসহ বিভিন্ন মানবতাবিরোধী অপরাধে প্রত্যক্ষভাবে অংশ নিয়েছিল তারই পরিবর্তিত রূপ হচ্ছে ইসলামী ছাত্রশিবির। স্বাধীনতার পর থেকেই এ সংগঠনটি দেশের শিক্ষাঙ্গণগুলোতে ধর্মের ভিত্তিতে ছাত্র রাজনীতির নামে সন্ত্রাস, নৈরাজ্য ও সহিংসতার পরিবেশ সৃষ্টি করে আসছে। তারই ধারাবাহিকতায় উদীচী নেতাসহ সাধারণ শিক্ষার্থীদের উপর এ জঘন্য হামলা সংঘটিত হয়েছে বলে মন্তব্য করেন উদীচী’র সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক।

উদীচী চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সংসদের নেতৃবৃন্দ জানান, কয়েকদিন আগে হল দখলকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রশিবিরের সাথে অন্য একটি ছাত্র সংগঠনের সংঘর্ষ হয়, যার পরিপ্রেক্ষিতে সোহ্রাওয়ার্দী হল সিলগালা করে দেয় পুলিশ। সেই হল খুলে দেয়ার দাবিতে ডাকা অবরোধ কর্মসূচি চলাকালে শাটল ট্রেনে এ জঘন্য হামলা চালায় শিবির নেতা-কর্মীরা। সকালে ক্লাস করতে যাওয়ার জন্য শাটল ট্রেনে ওঠার পর ট্রেনটি যখন চৌধুরীহাট স্টেশন পৌঁছায় ঠিক সেসময় ট্রেনকে লক্ষ্য করে ১৫টির মতো ককটেল ও পেট্রোল বোমা ছোঁড়ে শিবিরের নেতা-কর্মীরা। এতে ট্রেনের সামনের দিকের বগিতে থাকা উদীচী নেতা প্রীতম ভট্টাচার্য্যসহ অন্তত ১০জন আহত হয়। পরে, তাদেরকে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শাটল ট্রেনে ককটেল ও পেট্রোল বোমা হামলা চালিয়ে উদীচী নেতাসহ শিক্ষার্থীদের আহত করার ঘটনার সাথে জড়িতদের অবিলম্বে চিহ্নিত করে যত দ্রুত সম্ভব দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করার জন্য সরকার ও প্রশাসনের প্রতি দাবি জানিয়েছেন উদীচী’র সভাপতি কামাল লোহানী ও সাধারণ সম্পাদক প্রবীর সরদার।